থার্টি ফার্স্ট নাইটে উন্মুক্ত স্থানে অনুষ্ঠান নয়, আতশবাজি এবং বেপরোয়া গাড়িতেও নিষেধাজ্ঞা - সোনারগাঁও দর্পণ

শিরোনাম

1


 

Post settings Labels No matching suggestions Published on 12/10/21 7:37 PM Permalink Location Options

Post Top Ad

Thursday, December 30, 2021

থার্টি ফার্স্ট নাইটে উন্মুক্ত স্থানে অনুষ্ঠান নয়, আতশবাজি এবং বেপরোয়া গাড়িতেও নিষেধাজ্ঞা


সোনারগাঁও দর্পণ :

মুসলিম অধ্যুষিত দেশ হয়েও পাশ্চাত্য আর অমুসলিমদের বিভিন্ন অনুষ্ঠান করতে আমরা অনেকেই ফ্যাশন মনে করি। যদিও এ সকল অনুষ্ঠান পালন করতে গিয়ে অনেক সময়ই ঘটে নানা অপ্রিতিকর ঘটনা। যে সকল ঘটনার খেসারত গুণতে হয় সরকার, প্রশাসন আর সাধারণ মানুষদের। 

শুক্রবার দিবাগত রাত ১২ থেকে শুরু হচ্ছে ইংরেজী নতুন বছর ২০২২ খ্রিস্টাব্দ। দিনটিকে ঘিরে যে কোন ধরণের অপ্রিতিকর ঘটনা এড়াতে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ থেকে ইতোমধ্যে বেশ কিছু বিষয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। ডিএমপি কমিশনার মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে থার্টি ফার্স্ট নাইট-২০২১ উদযাপন উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিষয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সকল নিষেধাজ্ঞার কথা জানিয়ে তা মেনে চলার জন্য সকলের কাছে অনুরোধ করেন।

সকলের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬টার পর ঢাকা মহানগরীর কোনো বার খোলা রাখা যাবে না এবং রাত ১০টার পর সকল ফাস্টফুডের দোকানও বন্ধ থাকবে।

পটকাবাজি, আতশবাজি, বেপরোয়া গাড়ি-মোটরসাইকেল চালানো যাবেনা।

৩১ ডিসেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় সন্ধ্যা ৬টার পরে বহিরাগত কোনো ব্যক্তি বা যানবাহন প্রবেশ করতে পারবে না। 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবাসিক এলাকায় বসবাসরত শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের গাড়ি নির্ধারিত সময়ের পর পরিচয় প্রদান সাপেক্ষে শাহবাগ ক্রসিং দিয়ে প্রবেশ করতে পারবেন। 

পরিচয় প্রদান সাপেক্ষে নীলক্ষেত ক্রসিং দিয়ে হেঁটেও প্রবেশ করতে পারবেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আবাসিক এলাকায় বসবাসরত শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারী।

গুলশান ও বনানী এলাকায় রাত ৮টার পর বহিরাগতরা প্রবেশ করতে পারবে না। তবে ওই এলাকায় বসবাসরত নাগরিকরা নির্ধারিত সময়ের পর কামাল আতাতুর্ক অ্যাভিনিউ (কাকলী ক্রসিং) এবং মহাখালীর আমতলী ক্রসিং দিয়ে পরিচয় প্রদান সাপেক্ষে প্রবেশ করতে পারবেন।

গুলশান, বনানী ও বারিধারা এলাকায় বসবাসরত নাগরিকদের ৩১ ডিসেম্বর রাত ৮টার মধ্যে নিজ নিজ এলাকায় প্রত্যাবর্তন করতে বলা হয়েছে।

রাত ৮টার পর হাতিরঝিল এলাকায় কাউকে অবস্থান করতে পারবেন না। 

৩১ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬টা থেকে ১ জানুয়ারি ভোর ৬টা পর্যন্ত ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন আবাসিক হোটেল, রেস্তোরাঁ, জনসমাবেশ ও উৎসবস্থলে সব ধরনের লাইসেন্স করা আগ্নেয়াস্ত্র বহন করা যাবেনা। 

নির্দেশনা পালনে ব্যর্থ হলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও সতর্ক করেছেন ডিএমপি কমিশনার।

এ সময় ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (অ্যাডমিন) মীর রেজাউল আলম, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম) মো. আসাদুজ্জামান, অতিরিক্ত পুলিশ কশিনার (ট্রাফিক) মুনিবুর রহমানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।




Post Bottom Ad