আগামীকাল থেকেই রাত ৮টায় বন্ধ হচ্ছে সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান - সোনারগাঁও দর্পণ

শিরোনাম

Post Top Ad

Sunday, June 19, 2022

আগামীকাল থেকেই রাত ৮টায় বন্ধ হচ্ছে সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান


সোনারগাঁও দর্পণ :

১ জুলাই নয়, আগামীকাল সোমবার থেকে সারাদেশে বন্ধ হচ্ছে সবধরণের দোকান, বিপণিবিতান, মার্কেট ও কাঁচাবাজার। বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয়ের উদ্দেশ্যে এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আজ রোববার (১৯ জুন) শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। 

এর আগে গত ১৬ জুন গত মঙ্গলবার (১৬ জুন) শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রাণালয়ের সচিব মো. আহসান কিবরিয়া সিদ্দিকী স্বাক্ষরিত ৩.০০.২৬৯০.০৮২.০৪৬.০৭৬.২০২২.০৬ নম্বর চিঠিতে এ সংক্রান্ত এক আদেশ দেয়া হয়। 

চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, বিশ্বব্যাপী জ্বালানীর অব্যাহত মূল্যবৃদ্ধিজনিত বিদ্ধমান পরিস্থিতিতে বিদ্যুৎ ও জ্বালানী সাশ্রয়ে নিমিত্ত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সানুগ্রহ নির্দেশনা প্রদান করেছেন। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ শ্রম আইন ২০০৬ এর ১৪৪ ধারা বিধান কঠোরভাবে প্রতিপালন পূর্বক সারাদেশে রাত ৮টার পর দোকান, শপিং মল, মার্কেট, বিপনী বিতান, কাঁচাবাজারসহ ইত্যাদি খোলা না রাখার বিষয়টি যথাযথভাবে নিশ্চিত করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো। 

এই নির্দেশনার বাইরে থাকবে সিগারেট, পান-বিড়ি, বরফ, খবরের কাগজ, সাময়িকী বিক্রির দোকান এবং দোকানে বসে খাওয়ার (হালকা) নাশতা বিক্রির খুচরা দোকানসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। তবে বন্ধ থাকবে মুদির দোকান।

এদিকে ক্লাব, হোটেল, রেস্তোরাঁ, খাবার দোকান, সিনেমা বা থিয়েটারের মতো জায়গাগুলো খোলা রাখার ক্ষেত্রে কোনো কঠোরতা দেওয়া হয়নি।

শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. এহছানে এলাহী জানান, তরি-তরকারি, মাংস, মাছ, দুগ্ধজাতীয় সামগ্রী, রুটি, পেস্ট্রি, মিষ্টি এবং ফুল বিক্রির দোকান, ওষুধ, অপারেশন সরঞ্জাম, ব্যান্ডেজ অথবা চিকিৎসাসংক্রান্ত প্রয়োজনীয় সামগ্রীর দোকান, দাফন ও অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পাদনের জন্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিক্রির দোকান, তামাক, সিগারেট, পান-বিড়ি, বরফ, খবরের কাগজ, সাময়িকি বিক্রির দোকান এবং দোকানে বসে খাওয়ার (হালকা) নাশতা বিক্রির খুচরা দোকান, খুচরা পেট্রোল বিক্রির জন্য পাম্প


এবং মেরামত কারখানা নয় এমন মোটর গাড়ির সার্ভিস স্টেশন, নাপিত এবং কেশ প্রসাধনীর দোকান, যেকোনো ময়লা নিষ্কাশন অথবা স্বাস্থ্য ব্যবস্থা, যেকোনো শিল্প, ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠান যা জনগণকে শক্তি আলো অথবা পানি সরবরাহ করে, ক্লাব, হোটেল, রেস্তোরাঁ, খাবার দোকান, সিনেমা অথবা থিয়েটার এবং ডক, জেটি, স্টেশন অথবা বিমানবন্দর এবং পরিবহন সার্ভিস টার্মিনাল অফিস রাত ৮টার পরও খোলা রাখা যাবে। এর বাইরে সকল দোকানপাট বন্ধ থাকবে বলে জানান তিনি।



শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ানের সভাপতিত্বে সভায় ঢাকা সিটি করপোরেশন উত্তর/দক্ষিণ, এমপ্লোয়ার্স ফেডারেশন, এফবিসিসিআই, এমসিসিআই, বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতি, ঢাকা চেম্বারসহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী মালিক সংগঠন, বাণিজ্য, বিদ্যুৎ, শিল্প মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি এবং শ্রমিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।  তথ্য সূত্র - কালের কন্ঠ

Post Bottom Ad