খোকন সাহা-নান্নু’র ফোনালাপ ফাঁসে নান্নু’র রাজনৈতিক ভবিষ্যত - সোনারগাঁও দর্পণ

শিরোনাম

1


 

Post settings Labels No matching suggestions Published on 12/10/21 7:37 PM Permalink Location Options

Post Top Ad

Wednesday, January 5, 2022

খোকন সাহা-নান্নু’র ফোনালাপ ফাঁসে নান্নু’র রাজনৈতিক ভবিষ্যত


সোনারগাঁও দর্পণ :

সম্প্রতি ফাঁস হয়েছে সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটির সদস্য ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু’র কাছে নারায়ণগঞ্জ শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট খোকন সাহা’র ৫ লাখ টাকা চেয়ে করা ২মিনিট ৫৬ মিনিটের একটি ফোনালাপ। যা  নেটদুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। ইতোমধ্যে ফোনালাপটি পৌঁছেও গেছে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে। ফোনালাপের বিষয়টি বর্তমানে শুধু সোনারগাঁও বা নারায়ণগঞ্জই নয়। এ নিয়ে সর্বত্রই চলছে জল্পনা-কল্পনা। স্ব-স্ব অবস্থান থেকে বিভিন্নজন প্রকাশ করেছে তাদের প্রতিক্রিয়া। কেউ প্রকাশ্যে কেউবা অপ্রকাশ্যে। 

গত ২৪ ডিসেম্বর ফোনালাপটি হলেও তা প্রকাশ হয়েছে মাত্র ৪ দিন আগে গত দুই জানুয়ারি। অনেকেই মন্তব্য করেছেন - ফোনালাপটি হয়তো খোকন সাহা তথা ওসমান পরিবারের বিরুদ্ধে বড় কোন ষড়যন্ত্র। আবার কারো মতে ডা. সেলিনা হায়াত আইভি’র নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার একটি অপচেষ্টাও হতে পারে। আবার কারো মতে, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি নান্নু দীর্ঘ দিন উপজেলা যুবলীগের সভাপতি পদে আসিন আছেন। হয়েছেন প্রচুর অর্থ সম্পদের মালিক। তার এমভিশন এখন আরো উপরে। তাই আরো ওপরে উঠতে তিনি হয়তো নতুন কোন কৌশল এটেছেন। সে কৌশলের অংশও হতে পারে এ ফোনালাপ। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে নান্নুর উপরে ওঠার পেছনে বলির পাঠা খোকন সাহা ই-বা কেন হবেন ? কি আছে ফোনালাপের পিছনের কারণ ?

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নারায়ণগঞ্জ এবং সোনারগাঁও আওয়ামী লীগ এবং এর বিভিন্ন অঙ্গপ্রতিষ্ঠানের নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন ফোনালাপ এবং নান্নু’র রাজনৈতিক ভবিষ্যত নিয়ে তাদের প্রতিক্রিয়া। 

কারো মতে, খোকন সাহা, শামীম ওসমান তথা আওয়ামী লীগের পরীক্ষিত একনিষ্ঠ কর্মী। শামীম ওসমানের একনিষ্ঠ কর্মী হওয়ার পরও ফোনালাপে খোকন সাহা একদিকে শামীম ওসমান যে ডা. সেলিনা হায়াত আইভির বিজয় চান না তা নান্নুকে বোঝানোর চেষ্টা করেছেন। 

অপরদিকে, আইভি’কে মেয়ে বলে পরিচয় দিয়েছেন। যদিও আইভি’র পক্ষে তাকে (খোকন সাহা) এখনো মাঠে কাজ করতে দেখা যায়নি। যদিও আজ এক অনুষ্ঠানে শামীম ওসমান তার ছোট বোন আইভি’র জন্য নৌকা দিয়ে গড়া দুটি শাড়ি ক্রয় করেছেন। যে শাড়িগুলো খোকন সাহা এবং আব্দুল হাইকে দিয়ে পাঠিয়ে আইভি’কে সমর্থন দেয়ার বিষয়টি স্পষ্ট করবেন বলে উপস্থিত নেতাকর্মী ও মিডিয়াকর্মীদের জানান শামীম ওসমান। তবে, যদি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটি খোকন সাহার ফোনের বিষয়টি ভালভাবে না নেয় সেটি শামীম ওসমানের বদৌলতে হয়তো আপাতত পার পেয়েও যেতে পারেন খোকন সাহা। কিন্তু রফিকুল ইসলাম নান্নুর রাজনৈতিক ভবিষ্যত কি ? এ নিয়ে সোনারগাঁওয়ে চলছে জল্পনা-কল্পনা।

খোকন সাহা শামীম ওসমানের একনিষ্ঠ কর্মী বা লোক। আর শামীম ওসমানকে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী রাজনীতির পরিচালক হিসেবেই অনেকে জানেন। তাই, দু’জনের ফোনালাপ বিষয়ে সোনারগাঁও দর্পণ’ জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির অন্যতম সদস্য এএইচএম মাসুদ দুলাল, এ ব্যাপারে কোনরকম মন্তব্য করতে রাজি হননি।

এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের ২য় যুগ্ম আহবায়ক ও পিরোজপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইঞ্জিঃ মাসুদুর রহমান মাসুমকে ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।   

মাহফুজুর রহমান কালাম সোনারগাঁও দর্পণ’কে বলেন, বিষয়টি যার যার ব্যক্তিগত বিষয়। কারণ রাজনীতিবিদরা রাজনীতি করেন ভিন্ন ভিন্ন স্টাইলে। নিজস্ব স্টাইলে। শামীম ভাই করেন শামীম ভাইয়ের মতো। আমি করি আমার মতো। নান্নু করে নান্নুর মতো। খোকন সাহা খোকন সাহার মতো। এখন আইভি’র নির্বাচনের বিষয়ে খোকন সাহা কেন নান্নুর কাছে টাকা চেয়েছেন সেটি তিনিই ভাল জানেন। আর নান্নু কোন স্টাইলে রাজনীতি করেন সেটি নান্নু জানেন। আর অডিও ক্লিপটি স্যোসাল মিডিয়ায় প্রকাশ কিভাবে হলো তা আমার জানা নেই। হয়তো নান্নু’র ভবিষ্যত রাজনীতি আরো উজ্জল হবে এমন ধারণা থেকেই এমনটি হয়েছে।  

নারায়ণগঞ্জ - ৩ আসনের সাবেক সাংসদ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক কমিটির যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল্লাহ আল কায়সার সোনারগাঁও দর্পণ’কে বলেন, দু’জনের অডিও ক্লিপটি মোটামোটি অনেকেই শুনেছেন বলেই মনে হয়। অডিও ক্লিপটি আমার জানামতে কেন্দ্রেও না-কি গিয়েছে। যেহেতু খোকন সাহা আওয়ামী লীগের দুঃসময়ের পরীক্ষিত নেতা। শুধু তা-ই নয়, তিনি জেলা পর্যায় বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ পদে আছেন। নান্নুও আওয়ামী রাজনীতির সাথে দীর্ঘদিন ধরে জড়িত। পরীক্ষিত কর্মী। তারা দু’জনই আওয়ামী লীগের জন্য নিবেদিত প্রাণ। আমার মনে হয় এ ব্যাপারে কোন মন্তব্য না করে বরং কেন্দ্র কি সিদ্ধান্ত নেয় সেটা দেখাই ভাল।

সোনারগাঁও দর্পণ’ গত ২ জানুয়ারী রাতে ফোনে রফিকুল ইসলাম নান্নু’র কাছে এ বিষয়ে জানতে চায় ফোণালাপ ফাঁসে তার ভবিষ্যত রাজনীতিতে কোন প্রভাব পড়বে কি-না। এমন প্রশ্নের জবাবে রফিকুল ইসলাম নান্নু ‘সোনারগাঁও দর্পণ’কে বলেন, আমিতো খোকন ভাইকে ফোন করিনি, তিনি আমাকে ফোন করেছেন। আমি টাকা চাইনি তিনি আমার কাছে চেয়েছেন। এখানে আমারতো কোন দোষ নেই। যদি আমার কোন দোষ থাকে তাহলে আমার বিচার হবে। আমার রাজনৈতিকভাবে বা ব্যক্তিগতভাবেই সমস্যা হওয়ার কথা। যেহেতু আমি কোন অন্যায় করিনি সে ক্ষেত্রে কোন সমস্যা হওয়ার কথা না। আর হবে কি-না সেটা আল্লাহই জানেন।  

অপর এক প্রশ্নের জবাবে নান্নু বলেন, অডিও ক্লিপটি কে প্রকাশ করেছে সে ব্যাপারে সত্যিই আমি কিছু জানিনা। আমি জানি যে, ক্লিপটি আমি (নান্নু) প্রকাশ করিনি।                   


Post Bottom Ad