সোনারগাঁওয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, নারীসহ টেটাবিদ্ধ তিন, মোট আহত ১০

সোনারগাঁও দর্পণ : 

আধিপত্য বিস্তার টিকিয়ে রাখতে জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের  তিনজনসহ মোট কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। বুধবার রাতে সোনারগাঁও উপজেলার বারদী ইউনিয়নের আলগীরচর গ্রামের সাদেকুর রহমান ও  হাবিবুর রহমানের  সমর্থকদের মধ্যে সংর্ঘষের এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলো, সাদেকুর রহমানের পক্ষের মনির হোসেন, দেলেয়ার হোসেন, সাহিদা ও বিদ্যুৎ আর হাবিবুর রহমানের  পক্ষে হাবিব, জিয়া, জামির, আবেদা, জাহানারা ও সামিয়া। আহতদের মধ্যে মনির হোসেন, দেলেয়ার হোসেন ও সাহিদা টেটাবিদ্ধ হয়। টেটাবিদ্ধবস্থায় তিনজনকেই প্রথমে সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বাকীদের সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দীর্ঘদিন ধরেই সাদেক ও হাবিবের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। ইতোপূর্বে এ নিয়ে অনেক বার বিচার সালিশ হয়। তবে সমাধান দিতে ব্যর্থ হয়েছে স্থানীয় বিচারকরা। সবশেষ বুধবার রাতে হাবিব ওই জমিতে দেয়াল নির্মাণ ও লিচু গাছ লাগাতে গেলে সাদেক বাঁধা দেয়। এ নিয়ে প্রথমে উভয় পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। যা একপর্যায় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে রূপ নেয়। 

সাদেকুর রহমান জানায়, জমিটি তিনি ক্রয় সূত্রে মালিক। হাবিবুর রহমান জমিটির মালিক না হয়েও জবর দখলের মাধ্যমে জমিটি দখলের পায়তারা করছে।

হাবিবুর রহমান জানায়, জমিটি তার পৈতৃকভাবে পাওয়া। তার জমিতে তিনি দেয়া নির্মাণ করছেন। এতে সাদেক সম্পূর্ণ অবৈধভাবে বাঁধা দিয়ে হামলা চালিয়ে তার পরিবারের লোকজনকে আহত করেছে।

এ বিষয়ে সোনারগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ হাফিজুর রহমান জানান, এ ঘটনায় একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


Post a Comment

[blogger]

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget