স্ত্রী’কে বন্ধুদের সাথে থাকতে আর পর্ণো ছবি বানাতে রাজি না হওয়ায় নির্যাতন করতো মোরসালিন - সোনারগাঁও দর্পণ

শিরোনাম

1


 

Post settings Labels No matching suggestions Published on 12/10/21 7:37 PM Permalink Location Options

Post Top Ad

Friday, July 30, 2021

স্ত্রী’কে বন্ধুদের সাথে থাকতে আর পর্ণো ছবি বানাতে রাজি না হওয়ায় নির্যাতন করতো মোরসালিন

সোনারগাঁও দর্পণ :

কত নোংরা মানসিকতার ব্যক্তি হলে নিজের স্ত্রীকে তার বন্ধুদের সাথে যৌন মিলন করতে এবং পর্ণো ভিডিও তৈরি করতে পারে তার জ্বলন্ত প্রমাণ বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের আনন্দবাজারের পঞ্চবটি গ্রামের ফজর আলীর ছেলে বখাটে মোরসালিন (২৭)। এমন কি এসব কাজে রাজি না হওয়ায় স্ত্রীকে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয় সে। শুক্রবার (৩০ জুলাই) সকালে স্বামী মোরসালিনের বিরুদ্ধে সোনারগাঁও থানায় এমনই অভিযোগ করেছেন এক গৃহবধু (১৯)। এছাড়াও বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আতিকুল ইসলামকে মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে।

অভিযোগ থেকে জানা গেছে, সোনারগাঁও পৌরসভার ফতেকান্দী গ্রামের এসএসসি পরিক্ষার্থী ওই গৃহবধুকে গত বছর সোনারগাঁও  পৌরসভার লাহাপাড়া এলাকা থেকে কয়েকজনসঙ্গীসহ অপহরণের পর বিয়ে করে বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নের আনন্দবাজার এলাকার পঞ্চবটি গ্রামের ফজর আলীর ছেলে মোরসালিন। বিয়ের মাসখানেক পর থেকেই স্বামী মোরসালিন তার স্ত্রীকে দেহ ব্যবসা ও পর্ণগ্রাফী ভিডিও করতে চাঁপ দিতে থাকে। প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় দেড়লাখ টাকা  যৌতুক চায়। দিতে না পারায় শারিরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করে ওই গৃহবধুকে। স্বামীর অমানসিক নির্যাতনে নানান শারীরিক সমস্যায় বর্তমানে চিকিৎসাধীন ওই গৃহবধু। 

তিনি আরও জানান, তার স্বামী মাদক গ্রহণ ও বিক্রির সাথে জড়িত। স্বামীর অনৈতিক প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাকে শারিরিক ও মানসিক নির্যাতন করত। এক সময় সন্তান সম্ভবা হলে স্বামী ও শাশুড়ি জোড় করে গর্ভপাত করায়। চলতি মাসের ৮ জুলাই ভাড়া বাড়িতে তাকে পূণরায় তার স্বামীর বন্ধুদের সাথে রাত কাটাতে বলে। রাজি না হওয়ায় তাকে এলোপাথাড়ি মারধর করে একপর্যায় ঘরে থাকা বটি নিয়ে জবাই করতে গেলে তার ডাক চিৎকারে আশপাশের মানুষ গিয়ে উদ্ধার করে। এক পর্যায় তাকে তালাক দেয়ারে হুমকী দিয়ে চলে যায় মোরসালিন। তিনি আরো জানায়, তার স্বামী বিভিন্ন নারীদের প্রলোভন দেখিয়ে দেহ ব্যবসা ও পর্ণগ্রাফী তৈরিতে উৎসাহিত করে। বিষয়টি জানার পর ওই গৃহবধু তার মামার বাড়িতে চলে যায়। 

সোনারগাঁও থানার ওসি হাফিজুর রহমান জানান, এ ব্যাপারে একটি অভিযোগ পেয়েছেন। তদন্ত করে  আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


Post Bottom Ad