কবরই ছিল কিশোর লিয়নের নতুন বাড়ি

সোনারগাঁও দর্পণ :

কিশোর লিয়ন (১৫) চেয়েছিল বর্তমান ভাড়া বাড়িতে থাকবেনা। তাই বাবা-মা’কে বলেছিল অন্য কোথাও ভাড়া বাড়ি যেতে। কিন্তু বর্তমান সময়ে কেউ ভাড়া দিবে না বলার পরও ছেলের বায়নার এক পর্যায় শারীরিক নির্যাতন করে অভিভাবক। আর এতেই অভিমান করে ঘরের আড়ার সাথে ফাঁসি দিয়ে আত্মহত্যা করে সে। আজ মঙ্গলবার (২৭ এপ্রিল) ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের ভাগলপুর গ্রামে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ভাগলপুর গ্রামের রফিক মিয়ার ছেলে লিয়নদের বাড়ি ভাগলপুর হলেও তারা একই ইউনিয়নের কোন একটি গ্রামে (সূত্র অনেক চেষ্টা করেও ভাড়ায় থাকা এলাকার নাম জানাতে পারেনি) ভাড়া থাকত। যেখানে ভাড়া থাকতো কোন কারণে সেখানে থাকতে চাইছিলনা লিয়ন। বিষয়টি তার বাবা-মা’কে বলার পর বাবা-মা’ও তাকে বর্তমান পরিস্থিতি বুঝানোর চেষ্টা করে। কিন্তু বুঝাতে ব্যর্থ হয়ে ছেলেকে শারীরিক নির্যাতন করে তারা। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে অভিমান করে ঘরের আড়ার সাথে ফাঁসি আত্মহত্যার চেষ্টা করে। পরিবারের লোকজন বিষয়টি বুঝতে পেরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় লিয়নকে হাসপাতাল নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। 

এদিকে, থানা পুলিশ এড়াতে স্থানীয়দের সহযোগিতায় পুলিশকে না জানিয়েই মরদেহ কবর দেয়া হয়েছে বলে জানায় সূত্রটি।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁও থানার ওসি (তদন্ত) খন্দকার তবিদুর রহমান জানান, কেউ থানায় এ বিষয়ে কোন অভিযোগ করেনি। 


Post a Comment

[blogger]

Contact Form

Name

Email *

Message *

Powered by Blogger.
Javascript DisablePlease Enable Javascript To See All Widget