1. tarunbeghi@gmail.com : admin :
  2. mamun.sp10@gmail.com : Mokkaram Mamun : Mokkaram Mamun
  3. babuibasa@gmail.com : sd :
সোনারগাঁওয়ের শ্রমিকের কষ্টার্জিত টাকা নড়াইল থেকে উদ্ধার - সোনারগাঁও দর্পণ
বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ০৭:০৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
সোনারগাঁওয়ে আইনজীবির বিরুদ্ধে ধর্ষণ চেষ্টার মামলা ফেসবুক স্ট্যাটাসই যেন দায়িত্ব শেষ না হয় পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে পুলিশ বদ্ধ পরিকর – পুলিশ সুপার শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদের সুনাম যেন নষ্ট না হয় – এরফান হোসেন দ্বীপ চাঁদাবাজদের বিষয়ে সোনারগাঁওবাসীকে সতর্ক করে ইউএনও’র ফেসবুক স্ট্যাটাস সোনারগাঁওয়ে নগদ ৪ লাখ টাকাসহ লোড ব্যবসায়ীর প্রায় ১০ লাখ টাকার মালামাল ছিনতাই সোনারগাঁওয়ে শিশু ধর্ষণ, গ্রেফতার – ১ সোনারগাঁওয়ে শিশু খাদ্যের প্রতিষ্ঠানকে তিন লাখ টাকা জরিমানা, ৫০ লাখ টাকার মালামাল ধ্বংস সোনারগাঁওয়ের শ্রমিকের কষ্টার্জিত টাকা নড়াইল থেকে উদ্ধার মদনপুরে ছাত্র সমাজের উদ্যোগে ধর্ষণ বিরোধী মানববন্ধন

ছবি ঘর

সোনারগাঁওয়ের শ্রমিকের কষ্টার্জিত টাকা নড়াইল থেকে উদ্ধার

  • সর্বশেষ আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৮ অক্টোবর, ২০২০

সোনারগাঁও দর্পণ :

রকেটের মাধ্যমে সোনারগাওয়ের এক চাকুরিজীবীর বেতনের টাকা প্রতারণার মাধ্যমে খোয়া যাওয়ার পর, তা নড়াইল থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (৭ অক্টোবর) রাত ৮টার দিকে টাকার প্রকৃত মালিক নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও এলাকায় একটি ব্যাটারি কোম্পানির টেকনেশিয়ান নাজমুল হকের কাছে এ টাকা তুলে দেন নড়াইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রিয়াজুল ইসলাম।

পুলিশ জানায়, চাকুরিজীবী নাজমুলের বেতনের টাকা তার কোম্পানি থেকে প্রতিমাসে রকেটের মাধ্যমে পরিশোধ করা হয়। কিন্তু, সেপ্টেম্বর মাসের বেতনের ২২হাজার টাকা কোম্পানি থেকে একইভাবে দেয়া হলেও প্রতারকচক্র সেই টাকা অপকৌশলে তাদের রকেট অ্যাকাউন্টে হাতিয়ে নেয়। নাজমুল বিষয়টি নারায়ণগঞ্জ পুলিশকে জানায়।

পুলিশ প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে সে টাকা প্রথমে ময়মনসিংহ, পরবর্তীতে গাজীপুরে এবং প্রতারকচক্রের হাত ঘুরে সবশেষে নড়াইলের লোহাগড়ায় পাঠানো হয়েছে বলে জানতে পারে।
এরপর নড়াইল পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জসিম উদ্দিনের (পিপিএম-বার) নির্দেশে মাঠে নামে ডিবি পুলিশ। মাত্র দুই ঘণ্টার অভিযানে বুধবার (৭ অক্টোবর) বিকেলে নড়াইলের লোহাগড়া কলেজপাড়া এলাকা থেকে করিম খলিফা (২৫) নামে একজনকে আটক করে পুলিশ এবং তার কাছ থেকে সেই ২২ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। পেশায় নির্মাণ শ্রমিক করিমের বাড়ি ফরিদপুরের ভাঙ্গা এলাকায়।
নড়াইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রিয়াজুল ইসলাম জানান, করিম সরাসরি প্রতারকচক্রের সঙ্গে জড়িত নয়। তার দুলাভাই প্রতারকচক্রের অন্যতম সদস্য। করিমের দুলাভাই অপকৌশলে তার (করিম) রকেট অ্যাকাউন্টে ২২ হাজার টাকা পাঠিয়ে দেয়। এই প্রতারকচক্রকে গ্রেফতারে পুলিশ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।
টাকা পেয়ে নাজমুল হক বলেন, নড়াইলের পুলিশ সুপারসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের আন্তরিকতায় আমি খোয়া যাওয়া ২২ হাজার টাকা ফেরত পেয়েছি। কষ্টার্জিত এই টাকায় আমার সংসার চলে। টাকা ফেরত পেয়ে যেন ‘সোনার হরিণ’ হাতে পেয়েছি।
টাকা হস্তান্তরের সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) ওসি নাসির উদ্দিন, এএসআই কামালসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা।

 

আপনি সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© All rights reserved © 2019 Breaking News
Theme Customized By BreakingNews