পরাজিত হয়ে প্রিজাইটিং অফিসারকে লাঞ্চিত, পরাজিত প্রার্থী গ্রেফতার - সোনারগাঁও দর্পণ

শিরোনাম

Post Top Ad

Wednesday, June 15, 2022

পরাজিত হয়ে প্রিজাইটিং অফিসারকে লাঞ্চিত, পরাজিত প্রার্থী গ্রেফতার


সোনারগাঁও দর্পণ :

ফলাফল পুরোপুরি না শুনেই প্রিজাইটিং অফিসার ফখরুল ইসলামকে শারীরিক নির্যাতন করেছে ৭ নং ওয়ার্ডে পরাজিত প্রার্থী মাহবুব আলম। বুধবার বিকালে ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের কেন্দ্রতে নেক্কারজনক এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর এর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়ভাবে ভাইরাল হয় ঘটনাটি।



জানাগেছে, ৮ম ধাপে ইউপি নির্বাচনে সীমানা জটিলতায় আটকে থাকা সোনারগাঁও উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ১৫ জুন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত কঠোর নিরাপত্তায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ইভিএম এর মাধ্যমে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে ৫ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর বিপরীতে ৭ নং ওয়ার্ড থেকে ইউপির সাধারণ সদস্য হিসেবে মোট ৫জন প্রতিদ্ব›িদ্বতা করেন। তাদের মধ্যে তালা প্রতিক নিয়ে আল মাহবুব পান ৩৫৬ ভোট, আপেল প্রতিকের দুলাল পান ৫৩৯ ভোট, ফুটবল মানিক পান ৯৩৫ ভোট, টিউবওয়েল প্রতিকের রফিকুল ইসলাম পান ১৯৭ ভোট এবং মোড়গ প্রতিকের আবু তাহের পান ৩৯৮ ভোট। ওয়ার্ডটিতে পাঁচপীর দরগাহ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পুরুষ এবং মহিলা ভোটারদের জন্য পাশাপাশি দুটি কেন্দ্র করে কমিশন।  


নির্বাচন শেষে বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে সকল প্রার্থী ও তাদের এজেন্টদের মহিলা কেন্দ্রে প্রিজাইটিং অফিসারের কক্ষে ফলাফল জানিয়ে দেন প্রিজাইটিং কর্মকর্তা ফখরুল ইসলাম। সে সময় দুইটি কেন্দ্রের ফলাফল পৃথকভাবে না দিয়ে একটি সেটে একত্রে লিখে দেয়ায় উত্তেজিত হয়ে ওঠে আল মাহবুব এবং আবু তাহের। এ সময় বেশক’জ বাঁধা দিতে চাইলে কাউকে তোয়াক্কা না করে আবু তাহের ও মাহবুবসহ তাদের সমর্থকেরা প্রিজাইটিং অফিসারকে উপর্যুপরি শারীরিক নির্যাতন করে। ভিডিওতে দেখা যায়, কিছু পুলিশ সদস্য ও স্থানীয় দু’একজন তাদের উত্তেজনায় বাঁধা দিলে আবু তাহের তার সমর্থকদের ডেকে জড়ো করে। 


একপর্যায় পুণরায় কক্ষের ভিতর গিয়ে আবারো পেটাতে থাকে। প্রিজাইটিং অফিসার বেরিয়ে যেতে চাইলে তাকে আবু তাহের, মাহবুব ও সুমন নামে তিনজন পিটাতে থাকে। অপর একজন বয়োজ্যেষ্ঠ হাতে থাকা ছাতা দিয়ে পেটায়। এমন সময় সাদা-কালো টিশার্ট গায়ে এক যুবক টেবিলের উপর ওঠে প্রিজাইটিং অফিসারকে লাথি দিলে মাটিতে পরে যান ফখরুল ইসলাম। তারপর চলে আবারো অমানবিক শারীরিক নির্যাতন। ভিডিওটি সর্বত্র চলে গেলে ছি... ছি... পরে যায় পুরো উপজেলা জুড়ে।

এ ঘটনায় ঘটনাস্থল থেকে ঘটনার সাথে জড়িত মাহবুবকে আটক করেছে পুলিশ।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ইউসুফ উর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হাফিজুর রহমানের মোবাইলে ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।


Post Bottom Ad