নির্বাচনের আগের রাতে টাকা উড়ার গল্প - সোনারগাঁও দর্পণ

শিরোনাম

Post Top Ad

Tuesday, June 14, 2022

নির্বাচনের আগের রাতে টাকা উড়ার গল্প


সোনারগাঁও দর্পণ :

পিচঢালা পথ। দুই পাশে নতুন-পুরোনা বহুতল ভবন। মাঝে মাঝে বিভিন্ন গাছ-গাছালি। টিনসেট ঘরও আছে ক্ষণে ক্ষণে। মহল্লার রাস্তার মোড়ে মোড়ে কিশোর আর যুবকদের জটলা। জটলার কারণ জানতে চাইলে উত্তর আসে, আজ তো চাঁন রাত। কারো মতে আবার আজইতো ছক্কা মারব ভাই। এরা কেউ নৌকার পক্ষে, কেউবা আনারস। আবার কেউ কেউ কোন না কোন মেম্বার বা সংরক্ষিত আসনের মহিলা মেম্বার প্রার্থীর সমর্থক-ভোটার।



মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর থেকেই মোগরাপাড়া ইউনিয়নের দমদমা, বিশেষ খানা, ষোলপাড়া, বাড়ি মজলিস, কাবিলগঞ্জ, পাঁচপীর দরগাহ, সোনাখালি এলাকায় ঘরে দেখা গেছে এমন দৃশ্য।

জানতে পারলাম, এক পক্ষ টাকা নিয়ে একটি গ্রামে প্রবেশ করছে তো অপর পক্ষ বাঁধা দিচ্ছে। প্রথমে ভদ্রভাবে চলে যেতে অনুরোধ। না শুনলে দে প্যাদানি। রেখে দে টাকা। 

সন্ধ্যা থেকে রাত একটা কি সোয়া একটা পর্যন্ত এমন ঘটনা ঘটেছে বেশ কয়েকটি স্থানে। সোনারগাঁও দর্পণ’র কাছে এমন বেশ কয়েকটি ফোন আসে। কোন কোন স্থানে প্রতিবেদক নিজেও যান। বেশির ভাগ স্থানেই টাকা নিয়ে বাঁধার সম্মুখিন হতে হয়েছে নৌকা প্রতিকের সমর্থকদের।

সন্ধ্যার দিকে দমদমা গ্রামে নৌকার সমর্থকদের কাছ থেকে প্রায় দুই লাখ টাকা রেখে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে বলে জানাগেছে। রাত ১২টার দিকে দমদমার পাশে ষোলপাড়া এলাকায় প্রবেশ করতে গিয়ে কেউ প্যাদানি খেয়েছে কেউবা  পালিয়েছে দৌড়ে। 

সোনাখালী এলাকায় নৌকা প্রতিক প্রার্থীর এক নিকটাত্মীয়কে টাকাসহ ধরে অনেকটা অপমানই করেছেন বলে সূত্র জানায়।

টান মুছা গ্রামে আনারস ও নৌকা প্রতিকের দুই গ্রæপের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে রাত সাড়ে ১২টার দিকে। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়েছে বলেও জানা গেছে।

অপরদিকে, ষোলপাড়া এলাকায় বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত আনারসের কোন কর্মী-সমর্থককে ঢুকতে দেয়নি নৌকার সমর্থক ও ভোটাররা বলে এই প্রতিবেদকের কাছে খবর আসে।



এদিকে বিশ্বস্ত একটি সূত্র দাবি করেছে, পাশের উপজেলা বন্দর এবং নারায়ণগঞ্জ সদর থেকে কমপক্ষে দেড় থেকে দুই শতাধিক যুবক ও কিশোর দেশীয় অস্ত্রসহ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় অবস্থা করছে। আর সে সকল বহিরাগত যুবক ও কিশোর ইজিবাইক, সিএনজি, মিশুক ও অটোরিক্সা দিয়ে দিনের বিভিন্ন সময় এ জনপদে প্রবেশ করে। 

তাই নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার দিতে হলে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে যথেষ্ট বুদ্ধিমত্তার পরিচয় দিতে হবে বলে ‘সোনারগাঁও দর্পণ’ মনে করে। কারণ স্থানীয় ভোটাররা অবশ্যই ভোট কেন্দ্রে যাওয়ার সময় স্ব-স্ব জাতীয় পরিচয় পত্র রাখবেন। যেখানে নাম,ঠিকানা যুক্ত থাকবে। আর নির্বাচনী এলাকার ব্যতীত অন্য ব্যক্তিরাই হতে পারে নির্বাচন বানচালের প্রধান হাতিয়ার।


Post Bottom Ad