সোনারগাঁওয়ে সার চোর ধরলো কৃষক; সার ও কীটনাশক উদ্ধার, আটক ২ - সোনারগাঁও দর্পণ

শিরোনাম

Post Top Ad

Tuesday, February 1, 2022

সোনারগাঁওয়ে সার চোর ধরলো কৃষক; সার ও কীটনাশক উদ্ধার, আটক ২


সোনারগাঁও দর্পণ :

সোনারগাঁও কৃষকের জন্য সরকারের বরাদ্ধ করা সার ও কীটনাশক পাচারের সময় এক’শ বস্তা সার ও ১০ কার্টুন কীটনাশক উদ্ধার করেছে বারদীর স্থানীয় কৃষকেরা। সোমবার রাতে উপজেলার বারদী ইউনিয়নের চেঙ্গাকান্দি এলাকা থেকে এ সকল সার ও কীটনাশক উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারের সময় এসব সরকারী পণ্য পাচারের সাথে জড়িত ট্রলার চালক ইসমাইল ও চালকের সহকারী জয়নালকেও আটক করে তারা। আটককৃতরা জানায়, উদ্ধার হওয়া সার ও কীটনাশক বারদী ইউনিয়নের শান্তিরবাজার এলাকা থেকে পাশ্ববর্তী আড়াইহাজার উপজেলা নিয়ে যাচ্ছিল তারা। মঙ্গলবার (১ লা ফেব্রæয়ারি) সকালে সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী র্কমকর্তা তৌহিদ এলাহী ও বারদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লায়ন মাহবুবুর রহমান বাবুল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এলাকাবাসী জানায়, বারদী ইউনিয়নের সরকারিভাবে সারের ডিলার নিয়োগ পান নাসিরউদ্দিন ভূঁইয়ার মালিকানাধীন ‘মেসার্স ভূঁইয়া টেডার্স’। কিন্তু নাসিরউদ্দিনের প্রতিষ্ঠানটি ডিলার নিয়োগ পাওয়ার পর থেকে ইউনিয়নের কৃষকেরা কখনোই তাদের চাহিদানুযায়ী সার পান না। এমনকি সার না পাওয়ার বিষয়ে কিছু বলতে গেলে দুর্ব্যবহারসহ নির্যাতনেরও শিকার হতেন। 

কৃষকরা জানায়, ভূঁইয়া ট্রেডার্সে সপ্তাহে তিন চার দফায় সার আসলেও সার পেতনা কৃষকেরা। ফলে স্থানীয় কৃষকদের মধ্যে অসন্তোষ দেখা দেয়। কৃষকদের কজাছে খবর আসে ডিলার নাসিরউদ্দিন ভূঁইয়া সোনারগাঁওয়ের বারদী ইউনিয়নের কৃষকের জন্য আসা সার বেশি মুনাফার লোভে অন্যত্র বিক্রি করে দেন। এরপর থেকেই মুলত বারদীর কৃষকেরা এ সচক্রটিকে হাতেনাতে ধরার চেষ্টা করে। অবশেষে সোমবার (৩১ জানুয়ারী) রাতে সারের ডিলার নাসিরউদ্দিন ভূঁইয়ার প্রতিষ্ঠান ভূঁইয়া ট্রেডার্স থেকে ১শ বস্তা সার ও ১০ কার্টুন কীটনাশাক ট্রলারে উঠানোর সময় কৃষকরা হাতে-নাতে ধরে  ট্রলারটির গতিরোধ করে। এ সময় ট্রলারের চালক ও হেলপারকে আটক করলে তারা জানায়, সার ও কীটনাশকগুলো আড়াইহাজার উপজেলার কালাপাহাড়িয়া নিয়ে যাচ্ছিল তারা। পরে বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য ও বারদী ইউনিয়ন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা রিয়াদ হাসানকে জানায় কৃষকেরা। পরে ওই কৃষি কর্মকর্তা স্থানীয় ইউপি সদস্যের সহায়তায় রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার করা সরকারী পণ্যগুলো তার নিজ জিম্মায় নেন।

বারদী ইউনিয়ন উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা রিয়াদ হাসান জানান, ইউনিয়নের কৃষকের সার ও কিটনাশকের চাহিদা পুরণ করা ইউনিয়নের প্রতিটি ডিলারদের দায়িত্ব। এসকল সার পাশ্ববর্তী কোন ইউনিয়নের কৃষকের কাছে বিক্রি করার কোন বিধান নেই। 

বারদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান লায়ন মাহবুবুর রহমান বাবুল বলেন, কৃষকের ফসল বাঁচাতে হলে সঠিক সময়ে তাদের কাছে সার ও কীটনাশক পৌঁছাতে হবে। আমি চেয়ারম্যান হওয়ার পর থেকেই এ এলাকার কৃষকরা সার না পাওয়ার অভিযোগ করে। এ ইউনিয়নের সার যদি রাতের আঁধারে অন্য উপজেলায় পাচার হয় তাহলে এ এলাকার কৃষকরা সার পাবেন কিভাবে ?। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহŸান জানান।

এ দিকে, ভূঁইয়া ট্রেডার্সের মালিক অভিযুক্ত নাসিরউদ্দিন দাবি করেন, যাদের আটক করা হয়েছে সে ব্যক্তিরা তার লোক নয়। এছাড়া সারগুলোও তার দোকান থেকে নেয়া হয়নি।  

সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌহিদ এলাহী বলেন, খবরপেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেনর এবং ঘটনা সত্যতা পান। সারগুলো জব্দ করা হয়েছে। এ কাজের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।


Post Bottom Ad